হাসনাত শোয়েব

কবি সিরিয়াল কিলারও হতে পারে, আবার হতে পারে মুদি দোকানদার হাসনাত শোয়েব


[মহান একুশে বইমেলা ২০১৭ কে সামনে রেখে কথাবলিডটকম আয়োজন করেছে এমন কতিপয় কবি ও কথাসাহিত্যিকের সাক্ষাৎকারের যাদের এই মেলায় নতুন কিংবা প্রথম বই প্রকাশ পাচ্ছে। এই পর্যায়ে আমরা কথা বলেছি দ্বিতীয় দশকের অন্যতম কবিদের একজন হাসনাত শোয়েবের সঙ্গে। বইমেলায় জেব্রাক্রসিং থেকে বের হচ্ছে তার কবিতার বই ‘ব্রায়ান অ্যাডাম্স ও মারমেইড বিষ্যুদবার’ তিনি আমাদের নানা প্রশ্নের বিচিত্র সব জবাব দিয়েছেন। আসুন তার কথা শুনি। — নির্ঝর নৈঃশব্দ্য] 

 

নিজের বই নিয়ে অনুভূতি কী?

তেমন কোন অনুভূতি নাই। প্রথম বইয়ে শুরুর দিকে ছিল, কিন্তু এরপর থেকে নাই হয়ে গেছে। একটা ভালোলাগা আছে, সেটা অন্য যেকোন কিছু্র মতো। এরবেশি কিছু না।

ছোটোবেলায় কিছু হতে চাইতেন?

অত মনে নাই। তবে ছোটবেলায় মনে হয় আমি মাইকেল জ্যাকসন হতে চাইছি।

আপনার লেখালেখির শুরু কবে থেকে মানে কতোদিন ধরে লেখালিখি করছেন?

ইন্টারের পর থেকে লেখালেখির শুরু

আপনার লেখালেখির শুরু কেনো বলে মনে হয়?

রকস্টার হইতে না পারার যন্ত্রণা থেকে লেখালেখি করতে আসছি। অবশ্য আমার পাঠাভ্যাস আমাকে এইদিকে আসতে প্রভোক করছে। মনে হচ্ছিল যেসবকে বিশ্বের সেরা সাহিত্য বলা হচ্ছে সেসব আমিও লিখতে পারি। যদিও ব্যাপারটা তেমন নয়।

আপনি কি শেষ পর্যন্ত কবি হতে চান, নাকি অন্যকিছু?

না। আমি মোটেই কবি টবি হতে চাই না। আমি রকস্টার হতে চাই। হতে পারে সেটা কবিতা লিখেই।

আপনার কাছে কবিতা কী?

যা কেউ বুঝবে না। তবে ভাবতে থাকবেন অনেকক্ষণ। ওইটুকু করতে পারলেই কবিতা।

আপনার মাথার মধ্যে কবিতার ইমেজ কেমন করে আসে?

নানাভাবে আসে। পড়তে পড়তে, দেখতে দেখতে, খাইতে খাইতে ভাবতে ভাবতে। তবে যখন আসে হঠাত করেই আসে।

বিশেষ কারো কবিতা কি আপনাকে প্রভাবিত করে?

না। একসময় করতো। এখন আর করে না।

আপনার নিয়মিত কার কার কবিতা পড়তে ভালো লাগে, কেনো লাগে?

নিয়মিত কারো লেখাই পড়ি না। তবে বিনয় মজুমদার আমার প্রিয়তম কবি। কেনো লাগে জানিনা।

কবি এরং কবিতার দায় সম্পর্কে আপনার মত কী?

কবির দায় অন্য যেকোন সাধারণ মানুষের মতো। এসব দায় টায় ভুয়া জিনিস। দায় চাপিয়ে কবিকে মহৎ বানানোর প্রসেসটাই সবচেয়ে ভয়ঙ্কর। কবি সিরিয়াল কিলারও হতে পারে, আবার হতে পারে মুদি দোকানদার।

আপনার সমকালীন কবিদের লেখা কবিতা সম্পর্কে আপনার মন্তব্য কী?

অনেকেই ভালো লিখছে। অনেকেই। এত ভালো কবিতা একসাথে এর আগে কবে লেখা হইছে আমি জানি না।

এই সময়ে যারা কবিতা লিখেন তাদের কবিতা বিষয়ে বলেন। তাদের অনেকের মাঝে কি স্টান্টবাজি লক্ষ করেন না?

ওইতো ভালো লিখতেছে অনেকেই। অবশ্যই স্টান্টবাজি লক্ষ্য করি। স্টান্টবাজি কি আমিও করি না! যার কবিতা হয় তার কাছে ওইসব কোন ব্যাপার না। বাজে কবিকে স্টান্টবাজিও বাঁচাতে পারবে না।

দশক বিভাজন বিষয়ে আপনার মত কী?

দশক বিভাজন সমস্যা মনে হয় না। এতে তার টাইম ও প্রবণতা বোঝা যেতে পারে।

শিল্প-সাহিত্যেক্ষেত্রে পুরস্কার প্রকৃতপক্ষে কী কোনো ভূমিকা রাখে?

ব্যক্তির ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে। যেমন টাকা একটা ফ্যাক্ট, এরপর হালকা খ্যাতিও আসে। তবে একটা বিষয় হচ্ছে পুরস্কার কে দিচ্ছে সেটাও ফ্যাক্ট। এসব কেবলই ব্যক্তিগত অর্জনের বিষয়। এর বাইরে পুরস্কার কোনো ভূমিকা রাখতে পারে না।

সবশেষে আপনি আপানার এমন একটা স্বপ্নের কথা আমাদের বলেন, যেটা বাস্তবায়ন করতে আপনার চেষ্টা আছে।

আমার অনেক টাকা লাগবে। সেটা কামানোর নানা ধান্ধায় আছি।